- - সবার আগে নিত্য নতুন টিপস পেতে সব সময় www.MixTuneBD.com ভিজিট করুন এবং Bookmark করে রাখুন।- -
 ×

HomeAndroid Custom Rom, Android Tips, Facebook Tricksনতুন ফটোগ্রাফারদের জন্য সেরা ১০ ডিএসএলআর ক্যামেরা
নতুন ফটোগ্রাফারদের জন্য সেরা ১০ ডিএসএলআর ক্যামেরা

ফটোগ্রাফি অনেকেরই শখের বিষয়। তবে এখন অনেকেই শুধু শখের বসে নয়, কাজ করছেন পেশাদার ফটোগ্রাফার হিসেবে। আর এজন্য দরকার একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা।

শুরুর দিকে অনেকেই বাজেট স্বল্পতার কারণে পছন্দের ক্যামেরাটি কিনতে পারেন না। তাই বাজেটের সঙ্গে মিলিয়ে ভালো ছবি তোলা যায় এমন ক্যামেরাই নতুন ফটোগ্রাফারদের পছন্দ। এ রকমই ১০টি ক্যামেরার খবর জানিয়েছে প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট টেক রাডার ডটকম।

১. নিকন ডি৩৩০০

নিকনের ডি৩৩০০ মডেলের ক্যামেরাটি নতুন ফটোগ্রাফারদের জন্য খুবই ভালো একটি ক্যামেরা। ২৪ দশমিক ২ মেগাপিক্সেলের এই ক্যামেরা নিকনের অন্যান্য ডিএসএলআর ক্যামেরার মতোই কাজ করে। তবে দাম তুলনামূলকভাবে কম। তবে এর দুর্বলতার মধ্যে রয়েছে এতে কোনো আর্টিকুলেটেড টাচ-স্ক্রিন ডিসপ্লে বা ওয়াই-ফাই সংযোগ নেই।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ২৪ দশমিক ২

লেন্স মাউন্ট : নিকন ডিএক্স

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি, ৯ লাখ ২১ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৫এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেলস

দাম : ৩৩৯ ডলার থেকে শুরু

২. ক্যানন ইওএস ৭৫০ডি (রেবেল টি৬আই)

উচ্চমাত্রার আইএসও সেন্সিটিভিটির জন্য দারুণ ঝকঝকে ছবি তোলা যায় এই ক্যামেরা দিয়ে। এর মেগাপিক্সেল ২৪ দশমিক ২। ক্যানন ৭৫০ডি মডেলের ক্যামেরাটিতে রয়েছে উন্নতমানের অটোফোকাস এবং এক্সপোজার মিটারিং সিস্টেম। আরো আছে বিল্ট-ইন ওয়াই-ফাই ও এনএফসি।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ২৪ দশমিক ২

লেন্স অ্যামাউন্ট : ক্যানন ইএফ-এস

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি আর্টিকুলেটিং টাচ-স্ক্রিন, ১০ লাখ ৪০ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৫এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৫৬৪ ডলার থেকে শুরু

৩. নিকন ডি৫৫০০

ক্যাননের ৭৫০ডি মডেলের ক্যামেরার সঙ্গে নিকন ডি৫৫০০ ক্যামেরার তুলনা চলে। নিকনের ডি৩০০০ সিরিজের ক্যামেরাগুলো তৈরি করা হয়েছিল নতুন ফটোগ্রাফারদের হাতে কম দামে ডিএসএলআর ক্যামেরা তুলে দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে। এতে রয়েছে টাচস্ক্রিন কন্ট্রোল, বিল্ট-ইন ওয়াই-ফাই। এর মেগাপিক্সেল ২৪ দশমিক ২।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ২৪ দশমিক ২

লেন্স অ্যামাউন্ট : নিকন ডিএক্স

স্ক্রিন : ৩ দশমিক ২ ইঞ্চি আর্টিকুলেটিং টাচ-স্ক্রিন, ১০ লাখ ৪০ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৫এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৬৩৯ ডলার থেকে শুরু

৪. ক্যানন ইওএস ৭৬০ডি (রেবেল টি৬এস)

ক্যানন এর ইওএস ৭০০ডি ক্যামেরার পরবর্তী দুটি সংস্করণ হচ্ছে ইওএস ৭৫০ডি এবং ইওএস ৭৬০ডি। ক্যামেরা দুটোর কারিগরী দিক কাছাকাছি হলেও ইওএস ৭০০ডি এর তুলনায় এই ক্যামেরা দুটির ভিন্নতা রয়েছে বাহ্যিক দিক থেকে। ক্যামেরার বডিতে রয়েছে থাম্বহুইল ও টপ প্লেট এলসিডি ডিসপ্লে। এ ধরনের ফিচারগুলো ক্যাননের উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ক্যামেরাগুলোতেই পাওয়া যায়। ওজনেও ইওএস ৭৫০ডি ক্যামেরাটি তুলনামূলকভাবে হালকা।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ২৪ দশমিক ২

লেন্স অ্যামাউন্ট : ক্যানন ইএফ-এস

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি আর্টিকুলেটিং টাচ-স্ক্রিন, ১০ লাখ ৪০ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৫ এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৬৪৯ ডলার থেকে শুরু

৫. নিকন ডি৫৩০০

নিকনের ডি৫৩০০ ক্যামেরায় ২৪ দশমিক ২ মেগাপিক্সেলের সেন্সর সাথে রয়েছে আইডেন্টিকাল মেক্সিমাম আইএসও ২৫৬০০ সেন্সিটিভিটি। এই ক্যামেরার টাচস্ক্রিন খুব একটা সুবিধার না হলেও এতে আছে জিপিএস।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ২৪ দশমিক ২

লেন্স মাউন্ট : নিকন ডিএক্স

স্ক্রিন : ৩ দশমিক ২ ইঞ্চি আর্টিকুলেটিং, ১০ লাখ ৩৭ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৫ এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৫১০ ডলার থেকে শুরু

৬. ক্যানন ইওএস ৭০০ডি (রেবেলটি৫আই)

২০১০ সালে প্রথম বাজারে ছাড়া হয়েছিল এই ক্যামেরা। তবে এখনো ফটোগ্রাফি শেখার জন্য প্রাথমিকভাবে এটি খুবই ভালো ক্যামেরা। এতে রয়েছে নাইন-পয়েন্ট অটোফোকাস সিস্টেম ও ওয়াই-ফাই কানেক্টিভিটি।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল ১৮

লেন্স মাউন্ট : ক্যানন ইএফ-এস

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি আর্টিকুলেটিং টাচস্ক্রিন, ১০ লাখ ৪০ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৫ এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৪৯৭ ডলার থেকে শুরু

৭. ক্যানন ইওএস ১০০ডি (রেবেল এসএল১)

২০১৩ সালের মার্চে এই ক্যামেরা যখন বাজারে ছাড়া হয় তখন এটি ছিল বিশ্বের সবচেয়ে ছোট ডিএসএলআর ক্যামেরা। এতে আছে ১৮ মেগাপিক্সেলের এপিএস-সি ফরম্যাট সেন্সর। ৩ ইঞ্চি টাচ সেন্সিটিভ স্ক্রিন।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ১৮

লেন্স মাউন্ট : ক্যানন ইএফ-এস

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি টাচস্ক্রিন, ১০ লাখ ৪০ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৪ এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৩৭১ ডলার থেকে শুরু

৮. ক্যানন ইওএস ১৩০০ডি (রেবেল টি৬)

১২০০ডি এর মতোই সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে ১৩০০ডি ক্যামেরাটিতে। শখের বসে বা ছবি তোলা শেখার জন্য ভালো ক্যামেরা এটি। এতে রয়েছে বিল্ট-ইন ওয়াই-ফাই ও এনএফসি টেকনোলজি। এতে রয়েছে ৩ ইঞ্চি স্ক্রিন।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল  : ১৮

লেন্স অ্যামাউন্ট : ক্যানন ইএফ-এস

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি, ৯ লাখ ২০ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৩ এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৩৯৮ ডলার থেকে শুরু

৯. ক্যানন ইওএস ১২০০ডি (রেবেল টি৫)

ক্যাননের ১৩০০ডি ও ১২০০ডি ক্যামেরা প্রায় একই ধরনের। এতে রয়েছে ১৮ মেগাপিক্সেলের সেন্সর। আরো আছে ৩ এফপিএস কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ১৮

লেন্স অ্যামাউন্ট : ক্যানন ইএফ-এস

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি, ৪ লাখ ৬০ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৩ এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৩২৪ ডলার থেকে শুরু

১০. পেনট্যাক্স কে-৫০

কম দামে ভালো ডিএসএলআর ক্যামেরা নিয়ে আসার জন্য সুনাম রয়েছে পেনট্যাক্সের। পেনট্যাক্সের কে-৫০ ও তেমন ক্যামেরা। যেকোনো আলোতে ছবি তোলার জন্য বেশ ভালো এই ক্যামেরা। এই ক্যামেরার লেন্সগুলো ওয়েদার রেজিসটেন্ট (ডব্লিউআর) প্রযুক্তিতে তৈরি। তবে সব ধরনের লেন্স এই ক্যামেরায় ব্যবহার করা যায় না।

সেন্সর : এপিএস-সি সিএমওএস

মেগাপিক্সেল : ১৬ দশমিক ৩

লেন্স অ্যামাউন্ট : পেনটাক্স কে

স্ক্রিন : ৩ ইঞ্চি, ৯ লাখ ২১ হাজার ডটস

কন্টিনিউয়াস শুটিং স্পিড : ৬ এফপিএস

সর্বোচ্চ ভিডিও রেজ্যুলেশন : ১০৮০ পিক্সেল

দাম : ৪৩২ ডলার থেকে শুরু

সৌজন্য:- MixTuneBD.Com
10 months ago (September 23, 2017)    Thank you
About Author (3179)

Administrator

You must be Logged in to post comment.

Related Posts
[show_theme_switch_link]
Top